রোজনামচায় – শেয়ার মার্কেট টিপস

Please follow and like us:
0

সুকান্ত বণিক: গত বুধবারের শেয়ার মার্কেট কথা মতোই কাজ করছে। সারা দিনই ধুঁকতে থাকা মার্কেট শেষ মুহূর্তে বন্ধ হয়েছে খুব সামন্য পয়েন্ট লোকসানেই। এ দিন নিফটি মাত্র ১৩ পয়েন্ট নেমে ঘুমোতে গেছে। তবে যন্ত্রণা যে এখনও অনেকটাই বাকি আছে, তেমনটাই দেখা যাচ্ছে টেকনিক্যাল চার্টে।

ভারতের শেয়ার মার্কেটে গত বুধবার সব থেকে বেশি প্রভাব পড়ার কথা ছিল আমেরিকার কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্ক ফেডারেল রিজার্ভের সুদ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত। তবে গতকালের মার্কেট দেখে স্পষ্ট হয়ে গেছে, সেনসেক্স বা নিফটির আগাম প্রস্তুতি কাজে লেগেছে। কারণ, সেনসেক্সের ক্ষয় মাত্র শ-খানেক পয়েন্টের উপর দিয়েই রক্ষা পেয়েছে। মার্কেটে যদি বিনিয়োগের ঢল না থাকত, তা হলে এই নাম মাত্র পয়েন্টে শেষ রক্ষা হতো না। তবে মার্কেটের সামনে যে গোলাপ ফুল বিছানো পথ পড়ে আছে, তেমনটাও নয়। উল্টে যন্ত্রণাও দেওয়ার সম্ভাবনা যথেষ্ট আছে।

গত বুধবার নিফটি ১০,৯৯৩.০৫ পয়েন্টে নেমে গিয়ে দিনের শেষে উদ্ধার করত সফল হয়েছে ৪০ পয়েন্ট। মাত্র ১৩.৬৫ পয়েন্ট খোয়ানো খুব একটা আলোচনার বিষয় নয়, আতঙ্কের তো নয়-ই। কিন্তু টেকনিক্যাল চার্ট বলছে, ১১,১৭০ পয়েন্টের গেরো না ছিঁড়তে পারলে আগামী দিনে খুবই মুশকিল। ফলে আজ (বৃহস্পতিবার) এবং এর পরের কয়েকটা দিন নিফটির সামনে লক্ষ্য ১১,১৭০ পয়েন্টের রেজিস্ট্যান্সকে ভেঙে ফেলা। সেই লক্ষ্যে সফল হতে পারলেই উপরের দিকে ওঠার প্রবণতা আবার পুরোমাত্রায় ফিরে আসতে পারে।

পড়ুন: কোন দিকে যাবে বুধবারের শেয়ার মার্কেট?

টেকনিক্যাল চার্ট থেকে আরও একটি বিষয় বেশ স্পষ্ট, এ মুহূর্তে নিফটির দুটি গুরুত্বপূর্ণ সাপোর্ট ১১,০১৫ এবং ১০,৯৪০। অন্য দিকে সব থেকে কাছে রেজিস্ট্যান্স এ মুহূর্তে ১১,১১০ পয়েন্ট। অর্থাৎ, আজ বা আগামী কয়েকটা দিনের মধ্য়ে নিফটির ১১ হাজারের নীচে ঘোরাফেরা করার যেমন প্রবল সম্ভাবনা তৈরি হয়ে গেছে, তেমনই রয়েছে ওই ১১,১৭০ পয়েন্টের বেড়া টপকে যাওয়ার আশা। এখন দেখার শেষ ১০০ দিনের ডেলি মুভিং অ্যাভারেজ বা ডিএমএ-কে অতিক্রম করতে পারে কি না নিফটি। ফলে যে সমস্ত বিনিয়োগকারী স্টক কেনার ক্ষেত্রে নিফটির গতিপ্রকৃতির উপর অধিক জোর দেন, তাঁদের জন্য ধৈর্য্যই এখন মোক্ষম অস্ত্র।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *