বান আসছে বামে?

CPIM Rally
Please follow and like us:
0

রোজনামচা প্রতিবেদন‌ঃ বামফ্রন্টের মরা গাঙে ফের বান ডাকতে চলেছে?

কবিগুরু তো বলেই গিয়েছেন, এ বার তোর মরা গাঙে বান এসেছে, জয় মা বলে ভাসা তরী…।  ২০১১-য় রাজ্যপাট হারিয়ে বামেদেরও সে অর্থে মরা গাঙ। রাজনীতি ওয়াকিবহালরা বলছেন, সেই গাঙেই বান আসার ইঙ্গিত মিলছে কয়েক দিন ধরেই। বিশেষ করে সিঙ্গুর থেকে কিষান পদযাত্রার পর ফের চর্চার বিষয় হয়ে উঠেছে বামেরা।

বামেদের মিছিল হলে যে কলকাতার রাস্তায় যানজট হয়, তা আবার ফিরল বৃহস্পতিবার। বুধবার সিঙ্গুরের রতনপুর মোড় থেকে সকাল ১১টা নাগাদ শুরু হয়েছিল সিপিএমের কৃষক সংগঠনের কলকাতামুখী পদযাত্রা। কৃষক-খেতমজুরদের রাজভবন অভিযান কর্মসূচিতে সারা রাজ্য থেকেই হাজার হাজার মানুষ অংশ নেন। প্রথমে শোনা গিয়েছিল, সিঙ্গুর থেকে রাজভবন যাত্রার এই কর্মসূচিতে জমায়েত হতে পারে  ১০ হাজার। কিন্তু সেই সংখ্যা আগেই অতিক্রান্ত বলে জানা যায়। আবার গতকালের পদযাত্রার অংশগ্রহণকারীদের ছাপিয়ে যায় আজকের রাজভবন অভিমুখী জনতার মাথার সংখ্যা।

এই রাজভবন অভিযানের  মূল দাবি ছিল, সিঙ্গুর সহ রাজ্যের সর্বত্র শিল্পের কারণে অধিগৃহীত জমিতে শিল্প স্থাপনই করতে হবে। বুধবার সিঙ্গুরে হাজির ছিলেন সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র, কৃষক সংগঠনের রাজ্য সভাপতি নৃপেন চোধুরী, সিপিএম নেতা মদন ঘোষ, ক্ষেতমজুর সংগঠনের নেতা তুষার ঘোষ ও অমিয় পাত্র। বৃহস্পতিবারও অনুষ্ঠানে যোগ দেন সূর্যবাবু-সহ অন্যান্য নেতৃত্ব। শুধু কৃষক নন, বামপন্থী অন্যান্য সংগঠনগুলিও অংশ নেয় এ দিনের কর্মসূচিতে। ফলে কলকাতায় যানজট না হওয়াটাও অস্বাভাবিক নয়।

এ দিন  দুপুরে হাওড়া থেকে একটি মিছিল আসে কলকাতার উদ্দেশে। সেই মিছিস হাওড়া ব্রিজের উপর পৌঁছলে পুরো সেতু প্রায় অবরুদ্ধ হয়ে ব্যাহত হয় যানবাহন চলাচল। ওই মিছিলটিও আসে রানি রাসমণি অ্যাভিনিউতে। সেখানে সভাস্থলে আরও কয়েকটি মিছিল এসে জমায়েত করে। ফলে ধর্মতলা চত্বরেও সিপিএমের মিছিল ও সভাকে কেন্দ্র করে যানজটের সৃষ্টি হয়। একাধিক বাস অন্য রুট দিয়ে ঘুরিয়ে দেওয়া হয়।

লোকসভা ভোটের আগে আগামী ৩ ফেব্রুয়ারি ব্রিগেড সমাবেশের ডাক দিয়েছে বামফ্রন্ট। তার আগে এই অভিযান একটা মহড়া হিসাবেও ধরা যেতে পারে। কিন্তু বড়ো অংশের একটা সংবাদ মাধ্যম যে বামেদের আর সে ভাবে গুরুত্ব দেওয়ার পক্ষপাতী নয়, তা প্রায় স্পষ্ট হয়েই ধরা পড়েছে এ দিন। আর কিছু না করুক, বামেদের মিছিলে যানজট বা সাধারণের দুর্ভোগের চিত্রটাও তো বিশদ ভাবে তুলে ধরতে পারত!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *